লাখো মুসল্লির কান্নার ধ্বনিতে শেষ হলো চরমোনাইর মাহফিল

received_817635045236839.jpg

বিজ্ঞপ্তি, prabartan | প্রকাশিত: ২২:৪৭, ২৩-০২-১৯

 

লাখো মুসল্লীর কান্নার ধ্বনিতে ও আখেরি মোনাজাতের মধ্যে দিয়ে ঐতিহ্যবাহী চরমোনাই দরবার শরিফের তিনদিন ব্যাপী বার্ষিক ওয়াজ মাহফিলের সমাপ্তি ঘটেছে শনিবার সকালে। বাদ ফজর বিদায়ী বয়ানের পরে চরমোনাই পীর মাওলানা মুফতি সৈয়দ মোঃ রেজাউল করিম আখেরী মোনাজাত পরিচালনা করেন। কয়েক লাখ লাখ মুসুল্লি ও মুরিদানদের নিয়ে প্রায় ২৫ মিনিটের এ মোনাজাতে দেশ-জাতী এবং মুসলিম উম্মাহ সহ সারা বিশ্বের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে মহান আল্লাহ রাব্বুল আল আমীনের দরবারে রহমত কামনা করেন চরমোনাই পীর। এসময় অশ্রুসিক্ত লাখ লাখ মুসুল্লি পরম করুণাময় আল্লাহর দরবারে পানাহ চেয়ে আহাজারি করেন।

গত বুধবার ২০ ফেব্রুয়ারী বাদ জোহর চরমোনাই পীরের উদ্বোধনী বয়ানের মধ্যে দিয়ে চরমোনাই দরবারের এবারের ফাল্গুনের বার্ষিক মাহফিলের সূচনা হয়। এ মাহফিলকে কেন্দ্র করে বরিশাল মহানগরী থেকে প্রায় ১৫ কিলোমিটার দুরে কীর্তনখোলা নদী তীরের চরমোনাই দরবার শরিফ একটি নগরীর রূপ নেয়। গত সোমবার থেকেই লাখ লাখ মুসুল্লি সড়ক ও নৌপথে চরমোনাই পৌছতে শুরু করেন।

গতকাল আখেরী মোনাজাতের মাধ্যমে পীর ছাহেব মুরিদানদের বিদায় জানান। এর পরেই সড়ক ও নৌপথে শত শত যানবাহনে মুসুল্লিদের ঘরে ফেরা শুরু হয়। চরমোনাই মাহফিলের মুসুল্লিদের বহনকারী যানবাহনের নিরাপদ চলাচলে বরিশাল মহানগর পুলিশ বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।
দেশের বিভিন্ন এলাকামুখি মুসুল্লীবাহী বাসগুলো বরিশাল- ফরিদপুর-ঢাকা, বরিশাল-খুলনা, বরিশাল-ভোলা ও বরিশাল-পটুয়াখালী-বরগুনা মহাসড়ক ধরে যাচ্ছিল। বিপুল সংখ্যক নৌযানেও চরমোনাই থেকে মুসুল্লীগন ঘরে ফিরছিলেন।
এবারের মাহফিলে প্রায় ১৫ বর্গমাইল জুড়ে পাঁচটি মাঠের ব্যবস্থা করা হয়।

এবারের মাহফিলে দেওবন্দের নায়েবে মোহতামিমসহ ছয়জন, সৌদিআরব, মিশর, কাতার, মালয়েশিয়া, লন্ডন থেকে বিদেশী ওলামায়ে কেরাম উপস্থিত হন।

মাহফিলের প্রথমদিন কোরআন শিক্ষা বোর্ড, দ্বিতীয়দিন যুব আন্দোলন, ওলামা সমাবেশ এবং তৃতীয়ূদিন শ্রমিক আন্দোলন ও ছাত্র আন্দোলনের প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হয়।

 

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top