ওজন বেড়ে হতাশা গ্রস্ত!

dddddddddddddddddddddddd.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট, Prabartan | আপডেট: ৯৫:৪৮, ১৬-০২-১৯

 

যখন কোনো অসুখের জন্য অ্যান্টিবায়োটিক খেতে হয়, তখন কারো দুই দিনে সুস্থ অনুভব হয় আবার কারো তিন দিনে। তাই বলে কোনো ডাক্তার বা ওষুধ কোম্পানি অফার দেয়না যে, এই অ্যান্টিবায়োটিক এ দুই দিনে ভালো হওয়া যায়।

ওজন কমাবার নামে নানা অফারগুলো নিরুপায় মানুষগুলো এক-দু’বার ট্রাই করে ঠিকই কিন্তু তারপর আবারও ওজন বেড়ে হতাশা গ্রস্ত হয়ে পড়েন। যেমন একদিন ফল, একদিন সবজি,একদিন মাংস ইত্যাদি ছাড়াও নানা ক্রাশ ডায়েটের প্রতি মানুষ না বুঝেই ঝুকে পড়েন। খাবারগুলোর পরিমাণ নির্ভর করবে আমাদের ক্যালরি চাহিদার ওপর। সাধারণত ওজন কমাতে ক্যালরি চাহিদা বয়স, ওজন, পরিশ্রম, রোগের ওপর ভিত্তি করে নির্ধারণ করা হয়।

সঠিক ডায়েট মেনেও ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব। নিন্মরূপ:

• ওজন কমাতে ভালো মতো সকালের নাস্তা খাওয়া খুবই জরুরি।
• খালিপেটে কুসুম গরম পানিতে লেবু ও মধু মিলিয়ে পান করতে পারেন
• ১০.৩০ থেকে ১১টা অর্থাৎ মধ্য সকালে হালকা কোনো খাবার গ্রহণ করুন যেমন ফল/ লেবু দিয়ে রঙ চা/ ডাবের পানি/ শশা/ গ্রিন টি ইত্যাদি।
• দুপুরে ১-১.৩০টার মধ্যে মধ্যাহ্ন ভোজ শেষ করুন, মেন্যুতে রাখুন অল্প ভাত বা রুটি/ সালাদ/ শাক/ সবজি/ মাছ
• বিকালে ৪-৫টার মধ্যে আরেকটি খাবার খাবেন, যা খুবই হালকা হবে, যেমন- বাদাম/ গ্রিন টি/ সুগার ছাড়া বিস্কুট/ ফল/ মাঠা
• রাতের খাবার অল্প পরিমাণে খাবেন ৮-৮.৩০টার মধ্যে। রুটি/ সবজি/ মুরগি বা মাছ খেতে পারেন।
• শোবার আগে টকদই বা ফ্যাট ফ্রি দুধ পান করুন।
এই কম সময়ের ওজন কমানোর ডায়েট করলে আমাদের শরীরের যে ক্ষতি হয়:
• ত্বক কুঁচকে যায়, শরীরে কালো দাগ পড়ে
• খাবারে অরুচি দেখা দেয়
• ঘুমেও বিঘ্ন ঘটতে পারে
• শরীরে পানিশূন্যতা দেখা দেয়
• প্রোটিনের ঘাটতির কারণে চুল রুক্ষ হয়ে পড়তে শুরু করে
• দুর্বল লাগে, কর্মশক্তি হ্রাস পায়
• রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও কমে আসে।

তাই ওজন কমাতে অবশ্যই খাওয়া কমানোর আগে জেনে নেয়া ভালো কি কারণে ওজন বেড়েছে। কেননা কারণ জানতে পারলে আমরা খুব সহজে ওজন কমাতে পারব এবং তা দীর্ঘস্থায়ীও হবে।

 

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top