চুকনগরে যাত্রীবাহি বাস উল্টে এক নারী নিহত : আহত ৩০

bbnfdjknbjknd.jpg

চুকনগরে মাত্র দুই দিনের ব্যবধানে আবারও নিয়ন্ত্রন হারিয়ে যাত্রীবাহী বাস উল্টে এক নারী নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় অন্তত ৩০ জন যাত্রী আহত হয়েছে।

চুকনগর প্রতিনিধি, Prabartan | আপডেট: ২০:০০, ১৪-০২-১৯

 

চুকনগরে মাত্র দুই দিনের ব্যবধানে আবারও নিয়ন্ত্রন হারিয়ে যাত্রীবাহী বাস উল্টে নাসিমা বেগম (৪৫) নামের এক নারী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় অন্তত ৩০ জন যাত্রী আহত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায়  চুকনগর বাসষ্ট্যান্ড থেকে এক কিলোমিটার দুরে চুকনগর-যশোর মহাসড়কের নুরানিয়া ফাজিল মাদ্রাসার সামনে এ দূর্ঘটনাটি ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, চুকনগর বাসষ্ট্যান্ড থেকে ৫০/৬০ জন যাত্রী নিয়ে ৬টার দিকে (খুলনা মেট্রো জ-০৪-০০২৬) বাসটি ছেড়ে যায়। বাসটি মাত্র এক কিলোমিটার দুরে নুরানিয়া ফাজিল মাদ্রাসার সামনে গেলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি যাত্রীবাহী বাসকে সাইড দিতে গিয়ে বাম পাশের চাকা রাস্তার নিচে নেমে যায়। এ অবস্থায় চালক বাসের নিয়ন্ত্রন হারালে মহাসড়কের উপরেই বাসটি আড়াআড়ি ভাবে উল্টে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই এক মহিলা নিহত হন। তিনি ডুমুরিয়া উপজেলার উখড়া গ্রামের মৃত হাবিবুর মোড়লের স্ত্রী। দূর্ঘটনায় ৩০/৩৫ জনের মত আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। আহতরা জানায় বাস ছাড়ার পর পরই চালক মোবাইল ফোনে কথা বলতে শুরু করে। চালকের মোবাইল ফোনে কথা বলার কারনেই এই দূর্ঘটনা ঘটেছে। আহতের কয়েকজনকে তাৎক্ষনিকভাবে খুমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। বাকিদের স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তারা হলেন মনিরামপুরের রোকেয়া বেগম(৪২), বাউশলার আরশাফ সরদার (৪৮), শ্রীপুরের বারেক গাজী (৬৯),হাসাডাঙ্গার রবিউল ইসলাম (৩৫), শিশু হাবিবা (২) ও হাবিবা বেগম (২৫)। এ সময় মহাসড়কে প্রায় এক ঘন্টা গাড়ি চলাচল বন্ধ ছিল। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত লাশটি চুকনগর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে ছিল। দূর্ঘটনার পরে বাসটি মহাসড়কে পড়ে থাকার কারনে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

 

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top