চুল পড়া কমানোর ৭ উপায়

image-392128-1612938506.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : চুল পড়া সমস্যায় কমবেশি সবাই ভোগেন। অনেকের বয়স থাকতেই মাথা খালি হয়ে যায়। নানা কারণেই চুল পড়তে পারে। বংশে নিকটাত্মীয়দের চুল পড়া সমস্যা থাকলে পরবর্তী প্রজন্মেরও এই সমস্যা দেখা দিতে পারে। আবার চুলের সঠিক যত্নের অভাবে এমনটি হতে পারে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দিনে ১০০ চুল পড়া স্বাভাবিক। এর চেয়ে বেশি চুল পড়লে বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হতে হবে।

চুল পড়া কমানো ও বন্ধের উপায় সম্পর্কে স্বাস্থ্যবিষয়ক বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক ওয়েবসাইট নিয়মিত প্রতিবেদন করে থাকে। সেই আলোকে চুল পড়া কমানোর কয়েকটি উপায় সম্পর্কে দেওয়া হলো-* মাথার ত্বকের রক্ত সঞ্চালন কম থাকায় অনেক সময় চুল ঝড়ে পড়ে।  রক্তসঞ্চালন বাড়াতে তেল ব্যবহারের বিকল্প নেই। আপনার মাথার ত্বকের সঙ্গে মানানসই এরকম তেল সপ্তাহে অন্তত একবার মাথায় দিন।

তেল ব্যবহারের দুই ঘন্টা ‘শাওয়ার ক্যাপ’ পরে থাকুন।  তার পর হালকা শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।  * মাথার ত্বক বুঝে শ্যাম্পু করতে হবে।  ত্বক শুষ্ক হলে শ্যাম্পু কম করাই ভালো। মাথার ত্বক তৈলাক্ত হলে সপ্তাহে দু-তিনবার পরিষ্কার করা প্রয়োজন। শ্যাম্পু বেশিক্ষণ মাথায় দিয়ে রাখা ঠিক না।  এতে চুল নরম হয়ে পড়তে পারে।* যারা নিয়মিত শরীরচর্চা করেন, তাদের মাথার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন ঠিক থাকে, চুলও কম পড়ে।

তাই নিয়মিত ব্যায়াম করুন।* যতই যত্ন নিন যদি খাদ্যতালিকায় পুষ্টিকর খাবার না রাখেন, তবে চুল ধরে রাখা কঠিন হবে।  তাই প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন ও লৌহ ধরনের খাবার রোজ খাদ্যতালিকায় রাখুন। এতে চুলের পুষ্টির চাহিদা পূরণ হয়।* সব কন্ডিশনার চুলে ব্যবহার করা যাবে না। উন্নত কন্ডিশনার চুলের জন্য উপকারী। এতে থাকে অ্যামিনো অ্যাসিড ক্ষয় পূরণ করে চুলকে মসৃণ করে তোলে।

* চুল রঙ করা, স্ট্রেট করা দীর্ঘমেয়াদে ক্ষতি বয়ে আনে। এ ছাড়া ভেজা চুলে ‘ব্লো ড্রায়ার’, ‘কার্লিং রড’ ব্যবহার ঠিক নয়। এগুলো চুলের ভেজাভাব শুষে নেয় ও ভঙ্গুরতা সৃষ্টি করে। * চুল বড় হলে আগা ফেটে যায়। নিয়মিত চুলের আগা ছেঁটে ফেলতে হবে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top
error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!