কথিত ‘খুলনার কন্ঠে’র সম্পাদক রানাসহ আটক ৩, ফেন্সিডিল উদ্ধার

131.jpg

কথিত খুলনার কন্ঠের সম্পাদক রানাসহ তিন জনকে ১০০ বোতল ফেন্সিডিসহ আটক করেছে খুলনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। একই সাথে মাদক চোরাচালানে ব্যবহৃত একটি প্রাইভেটকার জব্দ করা হয়ছে।

বৃহস্পতিবার (০৬ ফেব্রুয়ারি) রাত সোয়া ১০ টায় জেলার ফুলতলা থানাধীন যুগ্নিপাশার শেষ সীমানায় চার রাস্তার মোড় থেকে তাদের আটক করা হয়। আটকরা হলেন, মোঃ সোহেল শেখ(৩৬) মুন্সিগঞ্জ জেলার শ্রীনগর থানার হাতারপাড়া এনায়েত হোসেনের ছেলে, শেখ রানা (৩২) গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী থানার রায়েতকান্দি গ্রামের মোঃ ওমর আলী শেখের ছেলে ও মাহামুদ হাসান (৪৪) বাগেরহাট জেলার রামপাল থানার নবাবপুর গ্রামের মৃত কাঞ্চন আলীর ছেলে। এর মধ্যে শেখ রানার ‘খুলনার কন্ঠে’ নামক একটি কথিত অনলাইন পোর্টালের সম্পাদক হিসেবে পরিচিতি রয়েছে। তবে স্থানীয় সাংবাদিকরা বলছেন, ‘খুলনার কন্ঠ’ কোন অনুমোদিত নিউজ পোর্টাল নয়। তারা নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য না মাত্র নিউজ পোর্টালটি খুলেছে। তাদের ওই পোর্টালের বিরুদ্ধে ইতোপূর্বেও নানা বিতর্ক রয়েছে।

কথিত নিউজ পোর্টালের স্ক্রিনসর্ট।

খুলনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ সূত্র জানায়, ডিবি অফিসার ইনচার্জ তোফায়েল আহমেদের নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক সেখ কনি মিয়া ও এসআই মুক্ত রায় চৌধুরী সঙ্গীয় ফোর্সসহ বৃহস্পতিবার রাতে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। অভিযান কালে ফুলতলা থানাধীন যুগ্নিপাশার শেষ সীমানার চার রাস্তার মোড় সংলগ্ন স্পিড ব্রেকারের কাছে দুইটি প্রাইভেটকার তল্লাশির উদ্দেশ্যে সিগনাল দেয় ডিবি পুলিশ। তারা সিগনাল উপেক্ষা করে পালানোর সময় সরকারী পিকআপের মাধ্যমে বেরিকেট সৃষ্টি করে একটি প্রাইভেটকার আটক করা হয় এবং অপরটি বেপরোয়া গতিতে চালিয়ে খুলনার দিকে চলে যায়। এসময়ে আটক প্রাইভেটকারটি (ঢাকা মেট্রো খ-১২-৬৯৭৫) থেকে তল্লাশি করে ১০০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়।

ডিবি পুলিশ আরো জানায়, ঘটনার সাথে জড়িত আসামিরা মাদক ব্যবাসায়ী। তারা দীর্ঘদিন ধরে খুলনা শহরে অবস্থান করে ভারতীয় সীমান্ত এলাকা থেকে ফেন্সিডিলের চালান এনে দেশের বিভিন্ন স্থানে মাদক ব্যবসায়ীদের নিকট তা সরবরাহ করে আসছিল। এ সংক্রান্তে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ইনচার্জ তোফায়েল আহমেদ বাদী হয়ে ফুলতলা থানায় মাদক আইনে মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনাস্থল থেকে পলাতক প্রাইভেটকারে থাকা মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও সহযোগী মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার তথা মামলার সুষ্টু তদন্তের স্বার্থে তদন্তকারী অফিসার এসআই মুক্ত রায় চৌধুরী আসামিদের ৫ দিনের পুলিশ রিমান্ডের আবেদনসহ আদালতে প্রেরণ করেছেন।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!