ইভটিজিংয়ে বাধা দেয়ায় প্রধান শিক্ষককে নির্মম নির্যাতন

641753_138.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : চকরিয়ায় ইভটিজিংয়ে বাধা দেয়ায় এক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে ছুরিকাঘাত ও হাতুড়িপেটা করেছে বখাটেরা। শুক্রবার আনুমানিক রাত ৮টায় উপজেলার চিরিঙ্গা ইউনিয়নের চরন্দ্বীপ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।বখাটের হামলার শিকার শিক্ষকের নাম মোঃ সালেহ উদ্দিন (৪০)। তিনি চরন্দ্বীপ উপকূলীয় ভূমিহীন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এবং একই ইউনিয়নের মৃত হাজী মৌলানা হাবিবুর রহমানের ছেলে।আহতের ভাই মোঃ শরীফুল ইসলাম জানান, একই ইউনিয়নের আবদুল হাফেজের ছেলে ইব্রাহিম খলিলসহ ৪/৫ জন বখাটে বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীতেপড়ুয়া এক ছাত্রীকে বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার সময় প্রতিনিয়ত উত্যক্ত করতো।

আরও পড়ুন : সাইবার হামলার পেছনে রয়েছে চীন

এ নিয়ে ইতোমধ্যে শালিস-বিচারও হয়। একসপ্তাহ আগেও একই ঘটনা ঘটলে আবারো বিচার হয়। বিচারে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পায় ইব্রাহিম খলিল। কিন্তু এ ঘটনার জেরে ক্ষিপ্ত হয়ে শুক্রবার রাত আনুমানিক ৮টায় উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ সালেহউদ্দিন বিদ্যালয় দেখবাল করে আসার সময় স্থানীয় ফুলকাটাসড়কের মাথায় পৌঁছালে বখাটে ইব্রাহিম খলিল ও তার সহযোগী নয়নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা গিয়াসউদ্দিনের ছেলে দিদারসহ ৪/৫ জন বখাটে অতর্কিত হামলা করে।

বখাটেরা ওই শিক্ষককে ছুরিকাঘাত ও হাতুড়িপেটা করে। এ সময় প্রধান শিক্ষক সালেহউদ্দিনের চিৎকারে লোকজন এগিয়ে আসলে বখাটেরা পালিয়ে যায়। পরে প্রত্যক্ষদর্শী লোকজন ওই শিক্ষককে উদ্ধার করে চকরিয়া সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ওসমান গণি জানান, বিষয়টি কেউ জানায়নি, অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top