জাবিতে ছাত্রকে লাঞ্ছিত করার দুই ছাত্রীকে বহিষ্কার

1643265061_jabi.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে এক ছাত্রকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগে দুই ছাত্রীকে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। মঙ্গলবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের জরুরি সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বহিষ্কৃত দুই শিক্ষার্থী হলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রীতিলতা হলের আবাসিক ছাত্রী সুমাইয়া বিনতে ইকরাম এবং নওয়াব ফয়জুন্নেসা হলের আনিকা তাবাসসুম। তারা দুজনই নৃবিজ্ঞান বিভাগের ৪৬তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে সুমাইয়াকে এক বছর এবং আনিকাকে ছয় মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, বহিষ্কারাদেশ চলাকালে এই দুজন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস পরীক্ষাসহ কোনো ধরনের কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে পারবেন না। পাশাপাশি আবাসিক হলেও তাদের অবস্থান করা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর কার্যালয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলা এলাকায় সড়কে জায়গা ছেড়ে দেয়াকে কেন্দ্র করে স্নাতকোত্তরের এক ছাত্রের কলার ধরে চড় মারেন সুমাইয়া বিনতে ইকরাম। এ ঘটনায় তার ও সঙ্গে থাকা আনিকার শাস্তির দাবিতে সরব হন অন্য শিক্ষার্থীরা।

আরও পড়ুন : মেয়রের উপস্থিতিতে স্থানীয়রাই ভেঙে দিল জলাধারের স্থাপনা

শিক্ষাঙ্গন (১৫ ঘন্টা আগে) জানুয়ারি ২৬, ২০২২, বুধবার, ৯:০৯ অপরাহ্ন | সর্বশেষ আপডেট: ৯:৫৪ পূর্বাহ্ন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে এক ছাত্রকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগে দুই ছাত্রীকে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। মঙ্গলবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের জরুরি সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বহিষ্কৃত দুই শিক্ষার্থী হলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রীতিলতা হলের আবাসিক ছাত্রী সুমাইয়া বিনতে ইকরাম এবং নওয়াব ফয়জুন্নেসা হলের আনিকা তাবাসসুম। তারা দুজনই নৃবিজ্ঞান বিভাগের ৪৬তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে সুমাইয়াকে এক বছর এবং আনিকাকে ছয় মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, বহিষ্কারাদেশ চলাকালে এই দুজন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস পরীক্ষাসহ কোনো ধরনের কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে পারবেন না। পাশাপাশি আবাসিক হলেও তাদের অবস্থান করা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর কার্যালয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলা এলাকায় সড়কে জায়গা ছেড়ে দেয়াকে কেন্দ্র করে স্নাতকোত্তরের এক ছাত্রের কলার ধরে চড় মারেন সুমাইয়া বিনতে ইকরাম। এ ঘটনায় তার ও সঙ্গে থাকা আনিকার শাস্তির দাবিতে সরব হন অন্য শিক্ষার্থীরা।পরে রাতে দুই পক্ষই প্রক্টর অফিসে লিখিত অভিযোগ দেন। এরপরই দুই ছাত্রীকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত আসে প্রশাসন থেকে।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top