১৪ বছর কোমায় থাকা নারীর সন্তান প্রসব!

Male-nurse-arrested-for-alleged-rape-after-woman-in-coma-gives-birth-to-his-sonjpg-1548583524-79505-1548583564.jpg

১৪ বছর কোমায় থাকা নারীর সন্তান প্রসব!

ডেস্ক রিপোর্ট, Prabartan | আপডেট: ৫:০৫ পিএম, ২৭-০১-১৯

 

যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ১৪ বছর ধরে কোমায় থাকা এক নারী সন্তান প্রসব করেছেন। তার এই অপ্রত্যাশিত সন্তান জন্মদানের ঘটনায় হাসপাতালটির একজন পুরুষ নার্সকে গ্রেফতার করা হয়েছে। স্থানীয় পুলিশ এই গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গেল ২৯ ডিসেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনার ফিনিক্স এলাকার একটি হাসপাতালের কোমায় থাকা ওই নারী সন্তান প্রসব করেন। এর আগে ২৪ ডিসেম্বর তার গর্ভধারণের বিষয়ে নিশ্চিত হন হাসপাতালের চিকিৎসকরা। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, গেল ৮ মাসে গর্ভধারণ বিষয়ক কোনো জটিলতা বা কোনো অস্বাভাবিকতা লক্ষ্য করা যায়নি। – খবর ডয়চে ভেলে, এএফপি’র।

পরে পুলিশ শিশুটির ডিএনএ টেস্টের পাশাপাশি হাসপাতালের কর্মচারীদের ডিএনএ পরীক্ষা করে নাথান সাদারল্যান্ড নামের (৩৬) এক কর্মচারীকে গ্রেফতার করে।

পুলিশ কর্মকর্তা জেরি উইলিয়াম এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সেই নারীর পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা তদন্ত শুরু করি। শুরু থেকেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পূর্ণাঙ্গ সহায়তা করে আসছে। এটিকে যৌন নির্যাতনের ঘটনা হিসেবেই বিবেচনা করা হচ্ছ। তিনি আরো বলেন, গেল ৩০ বছরের পেশা জীবনে এমন ধরনের অভিযোগ কখনোই তার কাছে আসেনি।

আরো পড়ুন>>: শিক্ষার্থীরা কেন উইকিপিডিয়া ব্যবহার করবে?

আরো পড়ুন>>: রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের বিদ্যুৎ ২০২৩ সালে জাতীয় গ্রীডে সংযুক্ত হবে

অভিযোগ তদন্তকারী পুলিশ সার্জেন্ট টমি থমসন বলেন, গ্রেফতার হওয়া ন্যাথান সাদারল্যান্ড একজন লাইসেন্সধারী পুরুষ নার্স। হাসপাতালে তিনি সেই নারীর সেবার দায়িত্বে ছিলেন।

তিনি জানান, শিশুপুত্রটি সুস্থ আছে। তিনি আশা করেন, শিশুটি যথাযথ ভালোবাসা ও যত্নেই লালিত হবে।তিনি আরো বলেন, আমরা কোন জন্মের ঘটনা নির্ধারণ করতে পারি না, কিন্তু জন্ম নেয়া শিশুটিকে ভালোবাসতে ও সুন্দর পরিবেশ দিতে পারি।

কোমায় থাকা অবস্থায় সন্তান প্রসব করা নারীর পরিবারের আইনজীবী জানান, সেই নারী মুখভঙ্গির মাধ্যমে মনোভাব প্রকাশ করতে পারেন। সামান্য ঘাড় ও মাথা নাড়তে পারেন, কিন্তু কথা বলতে পারেন না। গেল এক দশক ধরে এমন অবস্থায় রয়েছেন তিনি। তবে শিশুটি সম্পূর্ণ সুস্থ। সে তার পরিবারের কাছে যত্নে ও ভালোবাসায় লালিত হবে, এমন নিশ্চয়তাও দেয়া হয়েছে।

এদিকে সেই হাসপাতালের নার্সিং ফ্যাসিলিটি বিভাগের প্রধান নির্বাহী এ ঘটনার পর পদত্যাগ করেছেন। তিনি বলেন, এটি ভীষণ ঘৃণ্য কাজ। আমাদের দায়িত্ব ছিল তার পূর্ণাঙ্গ সেবা নিশ্চিত করা। আমরা সেটি করতে ব্যর্থ হয়েছি।

 

বাংলাদেশ সময়: ১৭০৫, ২৭ জানুয়ারি ২০১৯

ডেস্ক/এএস

 

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top