চুল কেটে ও মুখে কালি লাগিয়ে রাস্তায় ঘোরানো হলো ধর্ষিতাকে

untitled-1-20220127145821.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : গণধর্ষণের শিকার এক নারীর চুল কেটে ও মুখে কালি লাগিয়ে প্রকাশ্যে রাস্তায় ঘোরানোর অভিযোগ উঠেছে একদল নারী বিরুদ্ধে। শুধু হাঁটানোই নয়, এই ঘটনায় উল্লাস প্রকাশ করতেও দেখা গেছে অভিযুক্তদের। বুধবার (২৬ জানুয়ারি) চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে।এ ঘটনায় অভিযুক্ত চার নারীকে আটক করেছে পুলিশ। নির্যাতিতা নারী এক সন্তানের জননী।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দিল্লির কস্তুরবা নগরের ২০ বছর বয়সী এক নারীকে প্রথমে গণধর্ষণ করেন অবৈধ মাদক কারবারিরা। পরে সেই নারীকে এক তরুণের মৃত্যুর জন্য দায়ী করে তার ওপর হামলা করেন অন্য নারীরা। এসময় ভুক্তভোগী নারীর মাথার চুল কেটে, গলায় জুতার মালা পরিয়ে এবং মুখে কালি লাগিয়ে প্রকাশ্যে রাস্তায় ঘোরানো হয়।

আরও পড়ুন : এক আইড়ের দাম ৮ হাজার টাকা

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এই ঘটনাকে অত্যন্ত নিন্দনীয় উল্লেখ করে টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় বলেন, ‘অত্যন্ত লজ্জাজনক ঘটনা। অপরাধীরা এতো সাহস পেল কোথায়? পুলিশকে এ বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দিতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং লেফটেন্যান্ট গভর্নর অনিল বাইজলের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। দিল্লিবাসী এ ধরনের ঘৃণ্য কাজ এবং অপরাধকে কখনোই বরদাস্ত করবে না।’

সংবাদমাধ্যম বলছে, গত বছরের ১২ নভেম্বর দিল্লির কস্তুরবা নগরের এক তরুণ আত্মহত্যা করেন। তার মৃত্যুর জন্য বছর কুড়ির এই নারীকে দায়ী করেন মৃতের পরিবার। অভিযোগ রয়েছে, এরপরই ওই নারীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যান মৃত ওই তরুণের চাচা। পরে তাকে গণধর্ষণ করা হয়।দিল্লি পুলিশের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ব্যক্তিগত শত্রুতার জেরে একজন নারীর ওপর এভাবে হামলা চালানো হয়েছে। তার যৌন হেনস্থা করা হয়েছে। এটা খুব দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। এই ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’

অন্য একটি সূত্রের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে, স্থানীয় এক যুবক ওই নারীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। ওই নারী তাতে সাড়া না দেওয়ায় সেই তরুণ আত্মহত্যা করেন। এরপরই ওই নারীকে হেনস্থা করতে ছেলেটির পরিবারের সদস্যরা পরিকল্পনা করেন।এদিকে এই ঘটনায় সরব হয়েছেন দিল্লি মহিলা কমিশনের চেয়ারপারসন স্বাতী মালিওয়াল। তিনি বলেন, ‘২০ বছরের এক তরুণীকে অবৈধ মাদক কারবারিরা গণধর্ষণ করেন।

এরপর তার মাথার চুল কেটে, জুতার মালা পরিয়ে, মুখে কালি মাখিয়ে রাস্তায় হাঁটানো হয়। দিল্লি পুলিশকে এ বিষয়ে নোটিশ দিয়েছি। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত সব অপরাধীকে দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছি।’পরে নির্যাতিতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন স্বাতী। পরে ভুক্তভোগী নারী ও তার পরিবারের নিরাপত্তারও দাবি জানানো হয়েছে বলে জানান  দিল্লি মহিলা কমিশনের প্রধান।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top