সরকারের অব্যবস্থাপনার কারণেই ডলার সংকট: বিএনপি

1674549160.BNP-logo-BG1.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : অর্থনীতির সর্বক্ষেত্রে সরকারের লাগামহীন দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনার কারণেই বর্তমানে ডলার সংকট সৃষ্টি হয়েছে বলে দাবি করেছে বিএনপি।মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সই করা এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে মির্জা ফখরুল বলেন, সোমবার রাত ৮টায় বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির ভার্চ্যুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। সভায় অর্থনীতির সংকট সৃষ্টির ফলে জনজীবনে যে অপরিসীম দুর্ভোগ সৃষ্টি হচ্ছে তার জন্য এ অবৈধ সরকারকেই দায়ী করা হয় এবং ব্যর্থতার দায় নিয়ে পদত্যাদের দাবি করা হয়।

তিনি বলেন, বিএনপি মনে করে, অপ্রয়োজনীয়, অনুৎপাদিত খাতে ডলার ব্যয় এবং অপকৌশলে ডলার বিদেশে পাচার করার ফলেই এ অচলাবস্থা সৃষ্টি হচ্ছে যা দেশের অর্থনীতিতে সুদূর প্রসারী নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।সভায় আগামী ২৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র হত্যা দিবস পালনের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের লক্ষ্যে গৃহীত পদক্ষেপ সম্পর্কে আলোচনা হয় এবং সম্ভাব্য প্রচেষ্টা ও উদ্যোগের মাধ্যমে কর্মসূচি সফল করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় বলেও জানান মির্জা ফখরুল।

আরও পড়ুন : কারাগারে থাকা মানুষদেরও স্বাস্থ্য সেবার অধিকার আছে: হাইকোর্ট

তিনি বলেন, দলীয় সভায় চলমান আন্দোলন, বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট ও অনির্বাচিত অবৈধ সরকারের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনকে দমন করার জন্য হত্যা, মিথ্যা মামলা দেওয়া, গণহারে গ্রেফতার, বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি তল্লাশি ও হয়রানির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়।  সভায় অবিলম্বে সব আটক বিরোধী নেতাকর্মীদের মুক্তি ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়।

সভায় উৎপাদন শুরুর মাত্র ২৭ দিনের মাথায় কয়লার অভাবে রামপাল তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের উৎপাদন বন্ধ, ডলারের মূল্য পরিশোধ করতে না পারায় চট্টগ্রাম বন্দরে আসা তিনটি জাহাজের চিনি ও ভোজ্যতেল খালাস করতে না পারা, ডলার সংকটের প্রভাব এবার হজ যাত্রীদের ওপরেও পড়বে, এলসি গ্রহণে বিদেশি ব্যাংকের অনীহা সামগ্রিকভাবে ডলার সংকট অর্থনীতিতে গভীর সংকট সৃষ্টি করায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মির্জা ফখরুল আরও বলেন, দলের স্থায়ী কমিটির সভায় সদ্য প্রকাশিত স্কুল পাঠ্যপুস্তকে ইতিহাস ও বিষয়বস্তুর বিকৃতি, ভুলতথ্য ও ভাষাগত ভুলের দোষে দুষ্টু এবং ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত বিষয়ে তীব্র অসন্তোষ জানানো হয়।

স্থায়ী কমিটির সভায় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top