আসল এন-৯৫ মাস্ক চেনার উপায়

mask-1-20220123123437.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : বিগত দুই বছরে আমাদের আগা-গোড়াই নাড়িয়ে দিয়ে গেছে করোনাভাইরাস। আমরা যারা এখনও প্রতিদিন ভোরের সূর্য দেখতে পাচ্ছি, তারা সৌভাগ্যবান। কারণ করোনার কারণে অনেক কাছের মানুষ, আত্মীয়-পরিজন হারাতে হয়েছে আমাদের। মরণঘাতী এই ভাইরাস বারবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। নতুন নতুন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে ফিরে আসছে। এর শেষ কোথায়, তা আমাদের কারোই জানা নেই।

অদৃশ্য শত্রুর বিরুদ্ধে লড়াই করতে হলে সচেতন থাকার বিকল্প নেই। করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে চাইলে মেনে চলতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। ভিড়ের মধ্যে না যাওয়া, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের না হওয়া, সাবান দিয়ে বারবার হাত পরিষ্কার করা, স্যানিটাইজার ব্যবহার করা এবং মাস্ক পরার মতো বিষয়গুলো অবশ্যই মেনে চলতে হবে।

আরও পড়ুন : ঘরে বসে যে ৫ উপায়ে দূর করবেন দাঁতের হলদেভাব

করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে এন-৯৫ মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা। যে কারণে এই মাস্কের চাহিদা অনেকটাই বেশি। কারণ এই মাস্ক পরলে করোনাসহ সব ধরনের ভাইরাস থেকে দূরে থাকা যায়। চাহিদার কারণে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী বাজারে নকল এন-৯৫ মাস্ক নিয়ে এসেছে। সেসব মাস্ক ব্যবহার করলে যে সুবিধা পাবেন না, তা তো বুঝতেই পারছেন।

মাস্ক কিনতে গেলে দেখবেন, বাজারে নানা ধরনের মাস্ক রয়েছে। এর ভেতরে এন-৯৫ এর নাম করে ভিন্ন কোনো মাস্ক বিক্রি করা হচ্ছে হয়তো। এদিকে আপনি অনেকগুলো টাকা খরচ করে সেই নকল মাস্কই কিনে আনলেন শুধু চিনতে না পারার কারণে। এই মাস্কগুলো দেখতে আসল এন-৯৫ মাস্কের মতোই। কিন্তু এর ভাইরাস প্রতিরোধ করার কোনো কার্যক্ষমতা নেই। তাহলে আসল এন-৯৫ মাস্ক কীভাবে চিনবেন?

আসল এন ৯৫ মাস্ক চিনবেন যেভাবে

বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ হলো, এন-৯৫ মাস্ক পরার সময় নাক এবং মুখ সম্পূর্ণভাবে ঢেকে নিন। এরপর সানগ্লাস অথবা চশমা পরে নিন। এবার স্বাভাবিকভাবে নিঃশ্বাস নিন। যদি আপনার নিঃশ্বাস থেকে নির্মিত বাষ্প সানগ্লাস অথবা চশমায় লেগে যায়, সেক্ষেত্রে বুঝতে হবে যে আপনার এন-৯৫ মাস্কটি নকল। এছাড়া মাস্কের উপরে লেখা বিবরণ পড়েও জানতে পারবেন যে মাস্কটি আসল কি না। কাজেই, এন-৯৫ মাস্ক কেনার আগে বিবরণী পড়ে নেবেন। এতে নকল মাস্ক কেনার ভয় থাকবে না।

এন-৯৫ মাস্ক ব্যবহারের সঠিক উপায়

প্রায় দুই বছর ধরে মাস্ক ব্যবহার করলেও অনেকে এখনও এন-৯৫ মাস্ক ব্যবহারের সঠিক উপায় জানেন না। বিশেষজ্ঞদের মতে, একটি মাস্ক খুব বেশি হলে পাঁচ বার ব্যবহার করা যেতে পারে, তবে এর বেশি ব্যবহার করা যাবে না। তাই একটি নয়, একাধিক মাস্ক কিনে রাখুন। একটি মাস্ক বার বার ব্যবহার না করে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে সবগুলো ব্যবহার করুন। এন-৯৫ মাস্ক অবশ্যই পরিষ্কার করে নিতে পারেন। পাঁচ-সাত মিনিট মাস্কটি গরম পানিতে ভিজিয়ে ধুয়ে নিন। তবে কোনো ধরনের ডিটারজেন্ট বা ব্রাশ ব্যবহার করবেন না।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top