আত্মপক্ষ সমর্থন করতে বললেন খুবি উপাচার্য, অবস্থানে অনড় ২ শিক্ষার্থী

Screenshot_2021-01-18-আত্মপক্ষ-সমর্থন-করতে-বললেন-খুবি-উপাচার্য-অবস্থানে-অনড়-২-শিক্ষার্থী.png

নিজস্ব প্রতিবেদক: খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) দুই শিক্ষকের সঙ্গে অসদাচরণ ও তদন্তে অসহযোগিতার অভিযোগে দুই শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারের আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে আমরণ কর্মসূচি চলছে। রোববার থেকে রাতদিন আমরণ কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন ওই দুই শিক্ষার্থী।

অথচ বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য বলছেন, আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগকে উপেক্ষা করে সাজা চূড়ান্ত হওয়ার আগেই তারা এ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। তাদের উচিত বিধিবিধানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ গ্রহণ করা।

সোমবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে আমরণ কর্মসূচি পালনরত ইতিহাস ও সভ্যতা ডিসিপ্লিনের ১৭ ব্যাচের শিক্ষার্থী ইমামুল ইসলাম ও বাংলা ডিসিপ্লিনের ১৮ ব্যাচের শিক্ষার্থী মো. মোবারক হোসেন নোমানকে দেখতে যান উপাচার্য ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান।

এসময় শিক্ষার্থীদের এ অবস্থান থেকে সরে আসার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘তোমাদের বিরুদ্ধে যে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তা সাময়িক, এখনও চূড়ান্ত নয়। তোমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধিবিধান মেনে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ গ্রহণ কর।’

শিক্ষার্থীদের দাবি, খুবি শিক্ষার্থীদের পাঁচ দফা আন্দোলনে যুক্ত থাকায় তাদের অন্যায়ভাবে এ বহিষ্কার আদেশ দেওয়া হয়েছে। তা আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে প্রত্যাহার করতে হবে। অন্যথায় তারা আমরণ অনশন চালিয়েই যাবে।

আত্মপক্ষ সমর্থনের নোটিশপ্রাপ্তির বিষয়টি স্বীকার করলেও তা গ্রহণ না করে বা শৃঙ্খলা বোর্ডের সিদ্ধান্তের বিষয়ে একডেমিক কাউন্সিলে আপিল না করে তারা এমন কর্মসূচি কেন শুরু করলেন, এ বিষয়ে শিক্ষার্থীরা কোনো মন্তব্য করতে চাননি।

এদিকে অবস্থানের বিষয়টি জানতে পেরে রোববারই রাত ৮টার দিকে ছাত্রবিষয়ক পরিচালক ও সহকারী ছাত্রবিষয়ক পরিচালক এসে তাদেরকে এই কনকনে শীতের মধ্যে আমরণ কর্মসূচি থেকে সরে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মানুযায়ী আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ গ্রহণ করতে বলেন। এসময় তাদের এ সম্পর্কিত নির্দেশনা চিঠি পড়তে বললে তারা অস্বীকৃতি জানান।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: নিরাপত্তা সতর্কতা!!!