স্বাস্থ্যবিধি মেনে মসজিদে নববিতে ইফতার আয়োজনের পরিকল্পনা

122736mosque_nababi.jpg

ডেস্ক রিপোর্ট : করোনাকালের দুই বছর পর মসজিদে নববি প্রাঙ্গণে শুরু হবে ইফতা কার্যক্রম। রমজান মাসে গণ-ইফতার পরিবেশন মদিনার নগরীর প্রাচীন ঐতিহ্য। করোনা সংক্রমণ রোধে গত দুই বছর গণ-ইফতার কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়। গত বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) এক বিবৃতিতে এ বছরের রমজান মাসে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ইফতা কার্যক্রম শুরুর কথা জানিয়েছে মসজিদ কর্তৃপক্ষ।

সৌদি গেজেটের খবরে জানা যায়, স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে সতর্কতামূলক সব ব্যবস্থার মাধ্যমে ইফতারের আয়োজন করা হবে। তবে ইফতার পরিবেশনে বেশ কিছু শর্ত দিয়েছে মসজিদ কর্তৃপক্ষ। এসব শর্ত পূরণ করেই ইফতার আয়োজনে অংশ নেওয়া যাবে।

খবরে আরো জানা যায়, করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় অংশ গ্রহণের সংখ্যা নির্ধারিত রাখার পাশাপাশি ইফতার পরিবেশকদের স্বীকৃত ক্যাটারিং ফার্মকে চুক্তিবদ্ধ হতে হবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পাঁচজন এবং দূরত্ব ছাড়া ১২জন একসঙ্গে ‘সুফরা’য় ইফতার খাবারে অংশ নিতে পারবেন।

আরও পড়ুন : বরগুনায় দ্বিতীয় দিনের মতো বাস চলাচল বন্ধ

করোনা সংক্রমণ রোধে ২০২০ সালের রমজান মাসে মসজিদে নববি প্রাঙ্গণে গণ-ইফতার কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়। ২০২১ সালের রমজানে মুসল্লিদের মধ্যে শুধুমাত্র পানির বোতল ও প্যাকেটজাত খেজুর বিতরণ করা হয়। এ বছরের ২ এপ্রিল রমজান শুরু হতে পারে।

গত বছরের অক্টোবর মাসে মক্কার পবিত্র মসজিদুল হারাম ও মদিনার মসজিদে নববিতে শতভাগ মুসল্লির উপস্থিতি শুরু হয়। করোনা সংক্রমণ বাড়ায় গত ৩০ ডিসেম্বর থেকে পুনরায় মক্কা-মদিনাসহ সৌদির সব স্থানে সামাজিক দূরত্ব ও মাস্ক পরিধান বাধ্যতামূলক করা হয়।

করোনা মহামারি শুরু আগে রমজান মাসে মসজিদে নববির অন্যতম আকর্ষণ ছিল ইফতার কার্যক্রম। লক্ষাধিক মুসল্লিদের মধ্যে ইফতার পরিবেশন তৈরি করত অন্য রকম আধ্যাত্মিক আবহ। তাছাড়া বিশ্বের দীর্ঘতম খাবার সারি হিসেবে মসজিদে নববি প্রাঙ্গণের ইফতারের ‌‘সুফরা’ বিশেষভাবে পরিচিত।

ফেসবুকের সাথে কমেন্ট করুন

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top